1. info@dainikashardigonto.com : দৈনিক আশার দিগন্ত : দৈনিক আশার দিগন্ত
  2. info@www.dainikashardigonto.com : দৈনিক আশার দিগন্ত :
শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ১০:২৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
দি রাউজান কো – অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়ন লিমিটেড ৩য় বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত পলাশ প্রেসক্লাবের নবগঠিত কমিটির সভাপতি- মনা ,সম্পাদক – রনি  সোনারগাঁ থেকে বাড়ি ফেরার পথে লাশ হলেন পিতা- পুত্র সুন্দরবনে মধু আহরণ করতে গিয়ে বাঘের আক্রমণে মৌয়াল নিহত বগুড়ার নিউমার্কেটে দোকানের সাটার ভেঙ্গে ১২০ ভরি স্বর্ণালঙ্কার চুরি বগুড়ার আদমদীঘিতে ২শত ৫০ বোতল ফেনসিডিলসহ গ্রেপ্তার দুই নড়াইলে একাধিক মামলায় সাজাপ্রাপ্ত দুইজন গ্রেফতার দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আরও ৭ দিন বন্ধ গাইবান্ধায় নিখোঁজ কিশোরের মরদেহ মিললো সেফটি ট্যাংকে বগুড়ার কাহালুর বারমাইলে আসক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে হুইল চেয়ার ও নগদ অর্থ প্রদান

আশুলিয়ার বিয়ে পাগল পাপিয়া পাণ্ডে সালমা আক্তারের অপকর্মের শেষ কোথায়

  • প্রকাশিত: বুধবার, ২০ মার্চ, ২০২৪
  • ১৪ বার পড়া হয়েছে

শান্ত খান,ঢাকা জেলা প্রতিনিধিঃ

সাভার উপজেলার স্বনির্ভর ধামসোনা ইউনিয়নে চেয়ারম্যানের শূন্য পদে আগামী উপ-নির্বাচনে নারী চেয়ারম্যান প্রার্থী মিসেস সালমা আক্তারের বিরুদ্ধে এক যুবলীগ নেত্রীর অশ্লীল ছবি ইন্টারনেটে ছেড়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে এলাকা ছাড়তে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।আশুলিয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন ওই যুবলীগ নেত্রী। এছাড়াও তিনি জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে আরেকটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি নং-৮৩৬) করেছেন। অভিযোগকারী ওই যুবলীগ নেত্রীর নাম শাহনাজ পারভীন শোভা। তিনি আশুলিয়ার ধামসোনা ইউনিয়নের ভাদাইল দক্ষিণপাড়া এলাকার পলাশ মিয়ার স্ত্রী এবং আশুলিয়া থানা যুবলীগের আহ্বায়ক কবির হোসেন সরকারের অনুসারী।বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, সাভার উপজেলার স্বনির্ভর ধামসোনা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম সংসদ সদস্য নির্বাচিত হলে এই ইউনিয়নে মিসেস সালমা আক্তার চেয়ারম্যান প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়ে ফেসবুকে প্রচারণা চালিয়ে আসছেন। তার প্রচারণায় এমপি সাইফুল ইসলামের সমর্থন রয়েছে বলেও প্রকাশ্যে দাবি করছেন সালমা আক্তার। তবে সম্প্রতি একাধিক বিয়ে বাণিজ্যসহ সালমা আক্তারের নানা প্রতারণা ও অপকর্মের খবর বেরিয়ে আসায় জনমনে সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে। এ নিয়ে জিয়াউল হাসান নিশক নামের ফেসবুক আইডিতে কারো নাম উল্লেখ না করে একটি পোস্ট করা হয়। সেই পোস্টে যুবলীগ নেত্রী শাহনাজ পারভীন শোভা সমর্থন সূচক কমেন্ট করায় তেলে বেগুনে জ্বলে উঠে তার উপর ক্ষুব্ধ হয়ে মুঠোফোনে কল করে তাকে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে ওই নেত্রীর অশ্লীল ছবি ইন্টারনেটে ছেড়ে দেওয়ার ভয়-ভীতি দেখিয়ে এলাকা ছাড়তে হুমকি দেন মিসেস সালমা আক্তার ওরফে পাপিয়া পান্ডে।লিখিত অভিযোগে শাহনাজ পারভীন উল্লেখ করেন,পাপিয়া পাণ্ডে সালমা আক্তার গত রোববার বিকেল ৩ টা ২১ মিনিটে মুঠো ফোনে কল করে আমাকে তার বাসায় যেতে বলেন। আমি তার বাসায় যেতে অপারগতা প্রকাশ করলে আমাকে অশ্লীল আচরণসহ ভয়-ভীতি ও বিভিন্ন প্রকার হুমকি প্রদর্শন করেন। এবংকি আমাকে দেখে নেওয়াসহ দ্রুত সময়ের মধ্যে এলাকা ছেড়ে চলে না গেলে আমার অশ্লীল ছবি তৈরি করে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেন।এ ধরনের হুমকির কারণে নারী হিসেবে তাঁর সম্মানহানি ঘটার সম্ভাবনা রয়েছে এবং হত্যার হুমকির কারণে তিনি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। সদ্য সম্পন্ন হওয়া দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সাবেক প্রতিমন্ত্রী ও ঢাকা ১৯ আসনের নৌকার প্রার্থী ডা. এনামুর রহমানের সমর্থক ছিলেন যুবলীগ নেত্রী শাহনাজ পারভিন শোভা।অভিযোগের সঙ্গে আশুলিয়া থানার ডিউটি অফিসার মোছা: মালেকা বানুকে ৪ মিনিট ২১ সেকেন্ডের একটি অডিও রেকর্ড দিয়েছেন ভুক্তভোগী শাহনাজ পারভীন শোভা। এ ছাড়া তিনি অডিওটি সাংবাদিকদের পাঠিয়ে এর সুষ্ঠু বিচার দাবি করেছেন। ওই অডিও রেকর্ডটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও ভাইরাল হয়েছে।অডিওতে সালমা আক্তারকে ফেসবুকের একটি কমেন্টের ইঙ্গিত করে বিভিন্ন অশ্লীল ভাষা বলতে শোনা যায়। দুই নারীর মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে যুবলীগ নেত্রী শাহনাজ পারভিন শোভার অশ্লীল ছবি ইন্টারনেটে ছেড়ে দেওয়ার হুমকিসহ শোভাকে হত্যার হুমকি দেন মিসেস সালমা আক্তার।শাহনাজ পারভিন শোভা অভিযোগ করে বলেন, উনি মিসেস সালমা আক্তার নাকি ধামসোনা ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে লরবেন, নারী হিসেবে আমরা গর্বিত। আমরা এই এলাকার বাসিন্দা হিসেবে তাকে অভিনন্দন জানাই। কিন্তূ আমার ফেসবুক আইডির পোস্ট কিংবা কমেন্টের কোন জায়গায় তার নাম উল্লেখ না করা সত্ত্বেও হটাৎ মুঠোফোনে কল করে সন্দেহভাজন হিসেবে আমাকে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে নানা ধরনের হুমকি দিতে থাকেন। এছাড়া এলাকায় আধিপত্য বিস্তার করতে নবনির্বাচিত একজন এমপির স্ত্রী পরিচয় দিয়ে মানুষকে ভয়-ভীতি প্রদর্শন করে আতঙ্ক ছড়িয়ে দিচ্ছেন। মূলত সালমা আক্তার একজন বহুরূপী প্রতারক। বিয়ের ফাঁদে ফেলে একাধিক পুরুষকে বিপদে ফেলে মোটা অংকের অর্থ হাতিয়ে নিয়ে কোটিপতি হওয়ার অভিযোগ রয়েছে পাপিয়া পাণ্ডে সালমা আক্তারের বিরুদ্ধে। আশুলিয়ার এই বিয়ে পাগল পাপিয়া পাণ্ডে সালমা আক্তারের অপকর্মের শেষ কোথায়.?অভিযোগের বিষয়ে মিসেস সালমা আক্তারের সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি। তিনি আশুলিয়ার মধ্য গাজীরচট এলাকার লেগুনা ড্রাইভার মোঃ শাহাজান মিয়ার মেয়ে। ওই বাড়িতে গিয়েও তাকে পাওয়া যায়নি। তার বিরুদ্ধে প্রতারণার মাধ্যমে প্রায় ডজন খানেক বিয়ে বাণিজ্যের অভিযোগ রয়েছে। সর্বশেষ এক নির্বাচিত এমপিকে বিয়ে করে গোপনে সংসার ধর্ম পালন করে আসছে পাপিয়া পাণ্ডে সালমা আক্তার। সুগার ড্যাডি ওই এমপির হাতিয়ার হিসেবে কাজ করছেন বলে অভিযোগ তুলেছেন খোদ সালমা আক্তারের পরিবারের সদস্যরা। তার এমন কাণ্ডে বিব্রত হচ্ছেন স্বজনরাও।সর্বশেষ গত ১১ মার্চ সালমা আক্তারের আপন মামা শিল্পপতি ও অভিনেতা আব্দুর রহিম পাটোয়ারী ওরফে এ আর মন্টু বাদী হয়ে তার বিরুদ্ধে এ সংক্রান্তে বিভিন্ন অভিযোগ এনে আশুলিয়া থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি নং-৮৮৪) করেছেন।

অভিযোগের তদন্ত কর্মকর্তা ও আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) ভোজন বলেন, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। এ ব্যাপারে তদন্ত সাপেক্ষে অভিযুক্ত সালমা আক্তারের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।এ বিষয়ে ঢাকা রেঞ্জ পুলিশের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা বলেন, এ ঘটনায় আমাদের দপ্তরে এখনো কোনো অভিযোগ পাইনি। অপরাধীর লিঙ্গ যাই হোক কিংবা যতই ক্ষমতাধর হোক না কেন অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। আপাতত ভুক্তভোগীরা যে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছে নিয়ম অনুযায়ী তদন্ত করে সেটা সেই পুলিশ স্টেশন যথাযথ ব্যাবস্থা গ্রহন করবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
𝐂𝐫𝐚𝐟𝐭𝐞𝐝 𝐰𝐢𝐭𝐡 𝐛𝐲: 𝐘𝐄𝐋𝐋𝐎𝐖 𝐇𝐎𝐒𝐓